সাকিব-তামিম, না অন্য কেউ?

0
744

খেলা ডেস্ক,
২৪ ঘণ্টারও কম সময়ের ব্যবধানে দুটি সংবাদ সম্মেলনে এলেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে হারের পর, আর কাল শ্রীলঙ্কার বিপক্ষেই ফাইনালের ম্যাচ-পূর্ব সংবাদ সম্মেলনে। দুবারই একটা প্রশ্নের জবাব দিতে হলো তাঁকে। সাকিব-তামিম যদি কোনো কারণে না পারেন, তাহলে ফাইনালে কে ধরবেন বাংলাদেশের হাল?
সর্বশেষ দুই ম্যাচের পর প্রশ্নটা জোরালো হয়েছে, তবে ত্রিদেশীয় সিরিজজুড়েই তো বাংলাদেশের ম্যাচে ‘নিয়ম’ হয়ে গেছে এটা। সাকিব-তামিম ভালো খেললেই ভালো খেলে বাংলাদেশ। প্রমাণ? যে তিন ম্যাচে জিতেছে বাংলাদেশ, তাতে সাকিব আর তামিমই ঘুরেফিরে ম্যাচসেরা! সাকিব দুবার, তামিম একবার।
শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সর্বশেষ ম্যাচটা সব দিক থেকেই বিভীষিকাময় ব্যতিক্রম। সেটি বাদ দিলে তামিমের ব্যাট সিরিজজুড়েই হেসেছে। এখন পর্যন্ত টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ রান (২৪৯) তাঁর, প্রথম তিন ম্যাচেই পেয়েছেন ফিফটি। আর সাকিব বাজিমাত করছেন নিজের অলরাউন্ড দক্ষতায়। তামিমের মতো অতটা না হলেও দুটি ফিফটিসহ তাঁর রান ১৬৩, সঙ্গে ৯ উইকেট তো আছেই।
কিন্তু নিছক পরিসংখ্যান তো আর পুরোটা বলে না! যেমন বলে না প্রথম ম্যাচে জিম্বাবুয়ে ইনিংসের প্রথম ওভারেই ২ উইকেট নিয়ে সাকিবের ম্যাচের গতিপথ ঠিক করে দেওয়ার কথা, বলে না আগের তিন ম্যাচেই ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশকে পথ দেখানো সাকিব ও তামিমের জুটির কথাও। সাকিব তিন নম্বরে উঠে আসায় তামিমের সঙ্গে তাঁর জুটি হওয়ার সুযোগ মিলেছে। তার ফল? প্রথম তিন ম্যাচে বাংলাদেশের দ্বিতীয় উইকেট জুটিগুলো যথাক্রমে ৭৮,৯৯ ও ১০৬ রানের।
বোলিংয়ে মাশরাফি, মোস্তাফিজ, রুবেলরাও ভালোই করেছেন। তিনজনই উইকেট পেয়েছেন ৫টি করে। কিন্তু ব্যাটিংয়ে? ওই দুজনের বাইরে যা একটু মুশফিকুর রহিমই তো খেলেছেন! একটা ছোট্ট তথ্যেই অবস্থাটা পরিষ্কার হবে। মাত্র তিন দলের এই সিরিজে ওই তিনজনের বাইরে বাংলাদেশের আর কোনো ব্যাটসম্যানই রানসংগ্রাহকদের তালিকায় শীর্ষ ১৫-তেও নেই! রেকর্ড একপাশে রাখুন, সর্বশেষ দুই ম্যাচে সাকিব-তামিম ফিরতেই যেভাবে ধসে পড়েছে ব্যাটিং, সেটি শঙ্কা জাগায় বটে। মাহমুদউল্লাহ, সাব্বির, নাসিররা যে এখনো জ্বলে উঠতে পারেননি! মাশরাফিও চাপটা স্বীকার করে নিলেন, ‘তামিম শুরুতে আউট হয়ে গেলে একটা চাপ তৈরি হয়ে যায়। তামিমকে বলেও দেওয়া হয়েছে, সে যেন পুরো খেলাটা নিয়ন্ত্রণ করে। আর সাকিব তো অবশ্যই আমাদের সেরা পারফরমার। এত দিন পাঁচে খেলেছে, এখন তিনেও বেশ ভালো ব্যাট করছে।’
বাংলাদেশ চাইবে, আজ ফাইনালেও সাকিব-তামিমের বাইরে আর কারও দরকারই না পড়ুক। কিন্তু তা না হলে? অধিনায়কের মুখে আশার বাণীই থাকছে, ‘মুশফিকের দিকে তাকান, সে যে খারাপ অবস্থায় আছে, তা কিন্তু না। মিডল অর্ডার দুই দিনই ধসে পড়েছে ঠিকই। তবে কাল (আজ) এ রকম হলে বা এর চেয়ে বাজে পরিস্থিতি এলে তারা সেটা নিয়ন্ত্রণ করতে পারবে না, এই চিন্তা অন্তত আমার মধ্যে নেই। প্রথম আলো।