যুবসমাজকে কর্মমূখী করে সঠিক নেতৃত্ব বের করে আনা হবে

0
68

খবর বিজ্ঞপ্তি:
খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক বলেন, দেশরতœ শেখ হাসিনার মিশন ও ভিশন বাস্তবায়নের জন্য দেশ থেকে দুর্নিতি মুক্ত অভিযান চলছে। দেশে কোনভাবেই অনিয়ম ও দূর্নিতীকে মাথা উচু করে দাড়াতে দেওয়া যাবে না। দেশকে সঠিক পথে পরিচালনা করার জন্য মূল ভূমিকা নিতে হবে আমাদের যুব সমাজকে। আমি একটি কথাই বলতে চাই খুলনা মহানগর যুবলীগের ভিতর যাতে করে কোন মাদক ব্যবসায়ী, চাদাবাজ ও দখলবাজরা স্থান না পায় ও কোন ধরনের সুযোগ সুবিধা গ্রহন করতে না পারে।
খুলনা মহানগর আওয়ামী যুবলীগের প্রথম কার্যনির্বাহী কমিটির সভায় সভাপতির বক্তব্যে খুলনা মহানগর যুবলীগের আহবায়ক শফিকুর রহমান পলাশ একথা বলেন, খুলনার যুব সমাজকে ঐক্যবদ্ধ করে মাদক, সন্ত্রাস, চাদাঁবাদ, দখলবাদ মুক্ত একটি কর্মমূখী যুবসমাজ গড়ার জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা করবো। দেশের অর্ধেক জনগোষ্ঠী হচ্ছে যুবক, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা দেশকে আজ উন্নত রাষ্ট্রে পরিনত করার যে স্বপ্ন দেখছেন সেটাকে বাস্তবে রূপ দেওয়ার জন্য আমাদের এই যুবসমাজকেই মূল ভূমিকা রাখতে হবে। আজ আমরা দেখছি আমাদের এই যুব সমাজ বিভিন্নভাবে বিপথগামী, আমাদের এই নতুন কমিটির মূল লক্ষ্য হবে খুলনার এই বিপুল পরিমান যুবগোষ্ঠীকে সঠিক পথের দিকে বাহিত করে তাদের কর্মমূখী করে গড়ে তোলা এবং তাদের মধ্য থেকে সঠিক নেতৃত্ব বের করে আনা।
শনিবার সকাল ১১টায় দলীয় কার্যালয়ে নব নির্বাচিত কমিটির প্রথম সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভা পরিচালনা করেন খুলনা মহানগর আওয়ামী যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক শেখ শাহাজালাল হোসেন সুজন। এসময় তিনি বলেন, খুলনা মহানগর যুবলীগের নব নির্বাচিত কমিটির অধিকাংশ সদস্যই আপনারা জানানে সাবেক ছাত্রনেতা যারা অতীতে দলের জন্য নিবেদিন ছিলেন তাদের নিয়ে কমিটি গঠন করা হয়েছে। আপনারা জানেন আমি ও আমাদের আহবায়ক আমরা এক সময় ছাত্রলীগের নেতৃত্ব দিয়েছি। আমরা আগেও আমাদের সাথে কোন বিতর্কিত লোককে প্রশ্রয় দেইনি আর ভবিষ্যতের দিবো না। খুলনার যুব সমাজকে আমরা একটি ব্রান্ড ইউনিট হিসেবে পরিনত করার জন্য আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করবো।
এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, খুলনা মহানগর আওয়ামী যুবলীগের নব নির্বাচিত কমিটির সদস্য এম এম হাফিজুর রহমান, কামরুল ইসলাম, আব্দুল কাদের শেখ, এ্যাড. আল আমিন. মো: আবুল হোসেন, কাজী কামাল হোসেন, নজরুল ইসলাম দুলু, শওকত হোসেন, শেখ মো: আলী, অভিজিৎ চক্রবর্তী দেবু, কবির পাঠান, তাজুল ইসলাম, মোস্তফা শিকদার, কাজী ইব্রাহিম মার্শাল, জুয়েল হাসান দিপু, মহিদুল ইসলাম মিলন, মশিউর রহমান সুমন, মেহেদী মোড়ল, কে. এম. শাহীন, ইয়াসিন আরাফাত, রাশেদুল ইসলাম রাশেদ।
এসময় খুলনা মহানগর যুবলীগের নেতৃবৃন্দের সর্বসম্মতিক্রমে কয়েকটি সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হয়, এগুলোর মধ্য যুবলীগের কেউ কোন ধরনের অপকর্মের সাথে জড়িত থাকলে তদন্তের মাধ্যমে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য প্রশাসনের প্রতি আহবান জানানো হয়। যেসকল ওয়ার্ড যুবলীগের কমিটির মেয়াদ তিন বছরের বেশী তার তালিকা প্রস্তুত করা। দলের মধ্য শুদ্ধি অভিজান চালিয়ে সঠিক ও যোগ্য নেতৃত্ব নির্ধারন। বর্ধিত সভার তারিখ নির্ধারন। প্রতিটি ওয়ার্ডে কর্মীসভার তারিখ নির্ধারন। নতুন কেউ আওয়ামী লীগের টিকিট নিতে চাইলে আগামী সাত (০৭) দিনের মধ্য মহানগর যুবলীগের আহবায়ক ও যুগ্ম আহবায়কের নিকট জানাতে হবে। যেহেতু প্রতিটি ওয়ার্ডে কর্মীসভা করা হবে সেজন্য কোন ওয়ার্ড থেকে সংবর্ধনা নেওয়া হবে না। আগামী সাত (০৭) দিনের মধ্য যেসকল ওয়ার্ডে আওয়ামী যুবলীগের নামে ইউনিট অফিস রয়েছে তার পূর্ণাঙ্গ ঠিকানা মহানগর যুবলীগের কাছে জানানোর জন্য সভায় বলা হয়েছে।


একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here