ভোমরা স্থল বন্দরে রাজস্ব ঘাটতি ৩৭ কোটি ৮৫ লক্ষ টাকা

0
327

সাতক্ষীরার ভোমরা স্থল বন্দরে চলতি অর্থবছরের (২০১৭-১৮) প্রথম ছয় মাসে নির্ধারিত লক্ষ্যমাত্রার বিপরীতে ৩৭ কোটি ৮৫ লক্ষ টাকা রাজস্ব কম আয় হয়েছে। ৪১৮ কোটি ৮ লক্ষ টাকা লক্ষ্যমাত্রার বিপরীতে এ বন্দরে রাজস্ব আয় হয়েছে ৩৮০ কোটি ২৩ লক্ষ টাকা। এতে সমগ্র অর্থবছরের লক্ষ্যমাত্রা অর্জন কিছুটা কঠিন হবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।
ভোমরা শুল্ক স্টেশনের সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা (এআরও) বিকাশ বড়ুয়া জানান, ভোমরা বন্দর দেশের অত্যন্ত সম্ভাবনাময়ী একটি বন্দর। প্রথম ছয় মাসে ঘাটতি থাকলেও এনবিআর রাজস্ব আয়ের যে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে তা যথা সময়ে অর্জন করা সম্ভব।
ভোমরা শুল্ক স্টেশন সূত্র জানায়, ২০১৭-১৮ অর্থবছরের জুলাই মাসে ৪৬ কোটি ৭৮ লাখ টাকা রাজস্ব আয়ের লক্ষ্যমাত্রার বিপরীতে ৪৯ কোটি ২ লাখ ৮০ হাজার টাকা, আগস্ট মাসে ৩৮ কোটি টাকা লক্ষ্যমাত্রার বিপরীতে ৬১ কোটি টাকা, সেপ্টেম্বর মাসে ৩৯ কোটি ৭৯ লক্ষ টাকার বিপরীতে ৪৩ কোটি ৪০ লক্ষ টাকা, অক্টোবর মাসে ৮৪ কোটি ৫৪ লক্ষ টাকার বিপরীতে ৫৭ কোটি ৯৭ লক্ষ টাকা, নভেম্বর মাসে ৯৮ কোটি ৯৬ লক্ষ টাকার বিপরীতে ৮৩ কোটি ৪৫ লক্ষ টাকা ও ডিসেম্বর মাসে ১১০ কোটি ১ লক্ষ টাকার বিপরীতে ৮২ কোটি ৮২ লক্ষ টাকা রাজস্ব অর্জিত হয়েছে।
অর্থাৎ অর্থবছরের প্রথম ছয় মাসে ৪১৮ কোটি ৮ লক্ষ টাকা লক্ষ্যমাত্রার বিপরীতে রাজস্ব আয় হয়েছে ৩৮০ কোটি ২৩ লক্ষ টাকা। ঘাটতি রয়েছে ৩৭ কোটি ৮৫ লক্ষ টাকা।
প্রসঙ্গত, সাতক্ষীরার ভোমরা স্থলবন্দরে ২০১৬-২০১৭ অর্থবছরে রাজস্ব আয়ের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৭৩০ কোটি ৯৮ লাখ ৬৬ হাজার টাকা। ২০১৭-২০১৮ অর্থবছরে এই লক্ষ্যমাত্রা বৃদ্ধি করে নির্ধারণ করা হয় ৮৮১ কোটি ৮০ লাখ টাকা।
ভোমরা স্থলবন্দর সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান নাসিম জানান, ভোমরা বন্দর দিয়ে সবধরনের পণ্য আমদানির সুযোগ দেওয়া হলে এ বন্দর থেকে লক্ষ্যমাত্রার চেয়েও বেশি রাজস্ব আয় করা সম্ভব। গুটি কয়েক পণ্য আমদানির সুযোগ থাকায় রাজস্ব আয়ের সুযোগ কম। সংবাদদাতা