বার্ধক্যে যে কারনে পেশি শক্তি হারিয়ে যায়

0
113

খুলনাটাইমস লাইফস্টাইল: ভিটামিন ডি’র অভাবে বয়স ষাটের পরে পেশি হয়ে যেতে পারে দুর্বল। বয়স যত বাড়তি শরীর ততই হারাচ্ছে জৌলুশ। তারপরেও একই বয়সের দুজন মানুষের শারীরিক শক্তির মাত্রা এক হয়না। এমনকি ৬০ বছরে পা দেওয়া একজন দিব্যি হেঁটে চলে বেড়াচ্ছেন অন্যজন্ লাঠি ছাড়া দাঁড়াতেই পারেন না। কেনো এমনটা হয়? গবেষণার মাধ্যমে তার উত্তর খোঁজার চেষ্টা করেছেন গবেষকরা। অনেক কারণের মাঝে একটি হল ভিটামিন ডি’র অভাব। শরীরচর্চার মাধ্যমে পেশির শক্তি দীর্ঘদিন ধরে রাখা সম্ভব। তবে পর্যাপ্ত ভিটামিন ডি থাকলেও তা ধরে রাখা সম্ভব এমন যথেষ্ট প্রমাণ রয়েছে বলে দাবি গবেষকদের।এই গবেষণার অন্যতম গবেষক, আয়ারল্যান্ডের ট্রিনিটি কলেজের পুষ্টিবিদ মারিয়া ও’সালিভান বলেন, “আমাদের গবেষণার ফলাফলে দেখা যায় ভিটামিন ডি’য়ের অভাবের সঙ্গে বয়স্কদের পেশি দুর্বল হওয়ার সম্পর্ক রয়েছে। সেই সঙ্গে শারীরিক কর্মকা-েও প্রভাব ফেলে। তিনি আরও বলেন, “বয়স বাড়ার সঙ্গে তাল রেখে পেশির কার্যক্ষমতা ধরে রাখাকে যতটা গুরুত্ব দেওয়া উচিত ততটা অনেকেই দেন না। সুস্বাস্থ্য বজায় রেখে বার্ধক্যকে বরণ করে নেওয়ার জন্য শারীরিক পরিশ্রম, ভিটামিন ডি’য়ের অভাব মেটানো, খাদ্যাভ্যাস নিয়ন্ত্রণ ইত্যাদি জীবনযাত্রার বিভিন্ন প্রয়োজনীয় দিক নিয়ে আরও বিস্তারিত গবেষণা প্রয়োজন। ‘ইংলিশ লনজিটিউডিনল স্টাডি অফ এইজিং (ইএলএসএ)’য়ের অন্তর্ভুক্ত ৬০ বছর বা তারও বেশি বয়সের ৪ হাজার প্রবীণকে নিয়ে এই গবেষণা করা হয়। দেখা যায়, যাদের ভিটামিন ডি’য়ের অভাব রয়েছে তাদের পেশির শক্তি কমে যাওয়ার সম্ভাবনা যাদের এই ভিটামিনের অভাব নেই তাদের তুলনায় দ্বিগুন বেশি। একইভাবে পেশি অকেজো হয়ে যাওয়ার আশঙ্কাও যাদের ভিটামিন ডি’য়ের অভাব আছে তাদের প্রায় তিনগুন বেশি। ‘ক্লিনিকাল ইন্টারভেনশন ইন এইজিং’ নামক আন্তর্জাতিক জার্নালে গবেষণার ফলাফল প্রকাশিত হয়। আরও বিস্তারিত পর্যালোচনার মাধ্যমে গবেষকরা নিশ্চিত হয়েছেন যে এই ভিটামিনের অভাব পেশির কার্যক্ষমতা নষ্ট হওয়ার পেছনে সরাসরি সম্পৃক্ত। পাশাপাশি ব্যায়াম কিংবা শারীরিকভাবে কর্মঠ থাকার উপকারী দিক সম্পর্কেও আরেকবার নিশ্চিত করেছে গবেষণাটি। যেসকল প্রবীণরা নিয়মিত মৃদু শরীরচর্চা করেন তাদের পেশির কার্যক্ষমতা বজায় থাকে বৃদ্ধ বয়সেও।