বাগেরহাটে টিসিবির পেয়াজ বিক্রি শুরু

0
141

বাগেরহাট প্রতিনিধি:
পেয়াজের বাজার নিয়ন্ত্রণ ও ভোক্তাদের সাধ্যের মধ্যে পেয়াজ প্রাপ্তি নিশ্চিত করতে অবশেষে ৪৫ টাকা কেজি দরে বাগেরহাটে পেয়াজ বিক্রি শুরু করেছে ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি)। সোমবার সকালে জেলা প্রশাসকের কার্য্যালয় চত্বরে এই পেয়াজ বিক্রি শুরু হয়। সকাল থেকেই ৪৫ টাকা দরে পেয়াজের ট্রাকের সামনে আগ্রহী ক্রেতাদের উপচে পড়া ভীড় । পেয়াজ ক্রয় করতে দীর্ঘ লাইনে দাড়িয়ে অপেক্ষামান থেকেও পেয়াজ ক্রয় করতে দেখা গেছে । সুষ্ঠভাবে পেয়াজ বিক্রি নিশ্চিত করতে পুলিশ ও জেলা প্রশাসনের কর্মচারীদের তত্বাবধায়নে এই পেয়াজ বিক্রি হচ্ছে। এদিকে দীর্ঘ লাইনে দাড়িয়ে মাত্র এক কেজি পেয়াজ প্রাপ্তিতে অনেক ক্রেতা অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন। পেয়াজ ক্রেতা শামীম হাসান বলেন, খেটে খাওয়া মানুষ একদিনে যে আয় করছে, এক কেজি পেয়াজ কিনতেই তার সিংহভাগ চলে যাচ্ছে। তাই ৪৫ টাকা দরে পেয়াজ বিক্রি করায় মানুষের মধ্যে একটু স্বস্তি ফিরে এসেছে। আমরা চাই সরকারের এ ধারা অব্যাহত থাকুক। লাভলু শেখ বলেন, ৩ ঘন্টা দাড়িয়ে থেকে এক কেজি পেয়াজ পেয়েছি। যদিও আমার কিছু টাকা বেচে গেছে। তারপরও সময় গেছে তিন ঘন্টা।
আলাপ কালে কয়েকজন ক্রেতারা বলেন এত দিন পর যখন সমস্য সমাধানে ন্যায্য মুল্যে পেয়াজ সরবরাহ শুরু করেছে, তখন এই ধারা অব্যাহত থাকলে সব শ্রেণী পেশার মানুষের জন্য যেমন সহজ লভ্য তেমনী সরকারের ও সাফল্য অর্জন। তবে এত চাহিদার মধ্যে এক ট্রাক পেয়াজে বাগেরহাটের মানুষের কিছু হবে না, শহরের আরো কয়েকটি স্পটে বিক্রি হওয়া দরকার। আরও পেয়াজ এনে জেলার বিভিন্ন জায়গায় বিক্রি করলে সরকারের এ উদ্যোগ সফল হবে।
টিসিবির ডিলার মৌরি আইস প্লান্টের মালিক মোহাম্মাদ আলী বলেন, জেলা সদরের লাইসেন্সধারী ডিলার অনেকেই আছেন, কেউই তাদের লোকশান গুনতে রাজী নয়। আমার মত চিন্তা করে যদি সবাই উদ্যোগী হয় তাহলে পেয়াজের চলমান সমস্যা সমাধান হবে। আমাকে ৩ টন পেয়াজ দেওয়া হয়েছে। জেলা প্রশাসক মহোদয়ের নির্দেশ মত আমি এই পেয়াজ ৪৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি করছি।
ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের খুলনা আঞ্চলিক কার্য্যালয়ের প্রধান মোঃ রবিউল মোর্শেদ বলেন, আমরা বাগেরহাটের ডিলারকে ৩ হাজার কেজি পেয়াজ দিয়েছি। প্রতিদিন এক হাজার কেজি করে বিক্রি করবে। এছাড়া স্থানীয় জেলা প্রশাসন পরিস্থিতি অনুযায়ী কম বেশি বিক্রি করতে পারবেন।