দেয়ালে দেয়ালে সচেতনতার বার্তা ছড়িয়ে দিচ্ছে বার্জার

0
233

খুলনা টাইমস ঢাকা অফিসঃ আমাদের দুর্বার অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি, ব্যক্তিগত সমৃদ্ধি আর প্রযুক্তিনির্ভর যান্ত্রিক জীবনে নিজেদের অজান্তেই কিছুটা দূরত্ব সৃষ্টি হয় প্রকৃতির নিয়মের সাথে। প্রকৃতি নির্ভরতা, পারিবারিক আবহ আর সামাজিক মূল্যবোধের হাজার বছরের চর্চা থেকে দূরত্ব তৈরি হচ্ছে বর্তমান প্রজন্মের। এর সবই যে সচেতন ভাবে ঘটছে এমনটি নয় মোটেই। বরং, কিছু বিষয়ে হয়তো আমরা সচেতন ভাবেই অবজ্ঞা প্রদর্শন করি কিংবা কিছু ভুল যে আসলেই ভুল সেটি ভুলে যাই। আর এভাবেই বার বার করে চলা ভুলগুলোই একসময় পরিণত হয় বিপর্যয় তৈরির মতো মহীরুহে। এমন সব ভুলগুলো থেকেই নিজেদের শুদ্ধ করবার প্রয়াসে সম্প্রতি খুলনা মহানগরীর তিনটি জনবহুল স্থানে দেখা গেলো এক অভিনব উদ্যোগ। নগরীর কেডিএ, খালিশপুর আর ফেরিঘাট এলাকায় তিনটি ভবন মুড়িয়ে দেয়া হয়েছে নান্দনিক সব দেয়ালচিত্রে। শুধু যে সৌন্দর্য বর্ধনের কাজ করছে এই দেয়ালচিত্রগুলো এমনটি নয় মোটেই। প্রতিটি চিত্রেই রয়েছে সমাজে সচেতনতা তৈরির জন্যে দারুণ সব বার্তা।
‘রং (Wrong) বদলে রঙিন করি’ শিরোনামের একটি সচেতনতামূলক ক্যাম্পেইনের অংশ হিসেবে এই দেয়ালচিত্রগুলো অংকন করেছে বার্জার পেইন্টস বাংলাদেশ লিমিটেড।
খুলনা মহানগরের খালিশপুর এলাকায় শোভা পাচ্ছে পারিবারিক আবহে সন্তান লালন-পালনে পর্যাপ্ত সময় দেয়ার জন্যে মা-বাবার প্রতি আহবান জানিয়ে আঁকা একটি দেয়ালচিত্র। সন্তানের সুস্থ্য শারীরিক ও মানসিক বিকাশে কিংবা প্রথম শিক্ষক হিসেবে তুলনা নেই বাবা-মায়ের ভূমিকার। নাগরিক জীবনের কর্মব্যস্ততায় অনেকের পক্ষেই সন্তানকে পর্যাপ্ত সময় দেবার মতো সময় হয়ে উঠেনা। ফলে কিছুটা হলেও বিকাশ বাঁধাগ্রস্ত হয় শিশুদের। দেয়ালচিত্রে তাই উঠে এসেছে যেভাবেই হোক সন্তানকে সময় দেবার আহবান।
নগরীর কেডিএ এলাকায় রয়েছে নগরে বৃক্ষরোপণের বার্তা সংবলিত দারুণ একটি দেয়ালচিত্র। নগরে উন্নয়নের প্রয়াসে আমরা প্রতিনিয়ত করে চলেছি বৃক্ষনিধন। ফলে প্রতিনিয়ত শহরগুলোতে চলছে অদৃশ্য মরুকরণের প্রক্রিয়া। এক গবেষণায় দেখা গেছে, স্রেফ বৃক্ষনিধনের অভাবে নগরে ৪ ডিগ্রী সেলসিয়াস পর্যন্ত উত্তাপ বেড়ে যেতে পারে। এমনই এক প্রেক্ষাপটে প্রকৃতি বাঁচিয়ে নগর বাঁচানোর আহবান জানাচ্ছে কেডিএ তে আঁকা দেয়ালচিত্রে।
দেশের তরুণদের জন্যে সবচেয়ে আশংকাজনক বিষয় হচ্ছে মাদকের ভয়াবহতা। স্রেফ কৌতূহল কিংবা কুসঙ্গে অনেকেই আগ্রহ থেকে মাদক গ্রহণ করে ক্রমে আসক্ত হয়ে যায় মাদকের নেশায়। একটা সম্ভাবনাময় জীবন হারিয়ে যাবার জন্যে মাদকাসক্তিই যথেষ্ট। দেয়ালে দেয়ালে সচেতনতার বার্তা আঁকার এই ক্যাম্পেইনে তাই বাদ যায়নি মাদকের বিরুদ্ধে সচেতনতার বানীও। খুলনা মহানগরের ফেরিঘাট এলাকায় শোভা পাচ্ছে মাদকে কেউ তলিয়ে যাবার আগে মাদকাসক্তকে সহায়তা করার বার্তা।
বর্তমানে সংবাদজুড়েই থাকে অস্থিরতার বার্তা। এর অধিকাংশই ঘটে চলেছে স্রেফ পারিবারিক আবহ থেকে দূরে সরে যাওয়া কিংবা মাদকের আচ্ছন্নতায়। ভালো নেই আমাদের ধরিত্রীটিও। একের পর এক বৃক্ষ আর বনভূমি উজাড়ে আমাদের সুপরিচিত পৃথিবীয় ক্রমেই হয়ে উঠছে উত্তপ্ত আর অস্থির। এই যখন পরিস্থিতি, এমন সময়ে এধরণের বার্তা এই অস্থির সময়ে দিকে দিকে পৌঁছে দিবে স্বস্তির বার্তা।