দেবহাটার বিভিন্ন স্থানে লবণ কিনতে বেড়েছে মানুষের ভিড়, লবণের দাম বৃদ্ধি নিয়ে গুজব: চলছে লবণের কৃত্রিম সংকট সৃষ্টির চেষ্টা

0
227

আব্দুর রব লিটু: পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধির রেশ কাটতে না কাটতেই সারা দেশের ন্যয় দেবহাটার বিভিন্ন স্থানে চলছে লবণের কৃত্রিম সংকট সৃষ্টির চেষ্টা। লবণ কিনতে বেড়েছে ক্রেতার ভিড়। আর এতে তৈরি হচ্ছে নানা বিশৃঙ্খলা। মঙ্গলবার সকাল থেকে রাত পর্যন্ত হাটে বাজারের বিভিন্ন দোকানে লবণ কেনার ধুম পড়েছে। সরেজমিনে দেখা যায়, এক শেনীর অসাধু ব্যক্তিরা দেশের চলমান পরিস্থিতিকে অশান্ত করতে এবং নিজেদের ফায়দা লুটতে বাজারে ‘গুজব’ ছড়িয়ে বেড়াচ্ছে। আর এতে ৩৫ টাকা কেজি প্যাকেটের লবণ ৮০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। এ গুজব দ্রুত ভাইরাস আকারে ছড়িয়ে পড়ে পাড়া-মহল্লায়। এতে এলাকার বড় থেকে ছোট সকল দোকানে ব্যবসায়ীদের লবণ বিক্রির হিড়ির পড়ে। অতিরিক্ত দামে লবণ বিক্রি করে ফায়দা লুটতে শুরু করে ব্যবসায়ীরা। কোন কোন ব্যবসায়ী ঘোষণা দেয় দোকানের লবণ ফুরিয়ে গেছে। শুরু হয় সংকট। প্রাপ্ত তথ্যে জানা যায়, উপজেলার বিভিন্ন বাজার এবং গ্রামের ভিতরের দোকান গুলোতে লাইন দিয়ে নারী-পুরুষ লবণ কিনতে শুরু করে ৩৫ টাকার প্যাকেট লবণ ৮০ থেকে ১০০ টাকা এবং ১৩/১৪ টাকার লবণ কিনতে শুরু করে ২০ থেকে ৪০ টাকা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে হিমসিম খায় প্রশাসন। তাৎক্ষনিক ভাবে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাজিয়া আফরীন এবং দেবহাটা থানার ওসি বিপ্লব কুমার সাহার নের্তৃত্বে পুলিশ সদস্যরা বিভিন্ন হাট-বাজার পরিদর্শন করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনার চেষ্টা চালায়। তাছাড়া দ্রুত দেবহাটা থানা পুলিশের পক্ষ থেকে বিভিন্ন এলাকায় সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষে মাইকিং করা হয় এবং লবণের দাম কোথাও বেশি হয় নাই, এটি একটি নিছুক গুজব। কেউ লবণের দাম বৃদ্ধি করলে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার ঘোষণা দেওয়া হয়। এব্যাপারে দেবহাটা থানার অফিসার ইনচার্জ বিপ্লব কুমার সাহা বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব ছড়াচ্ছে কিছু সুবিধাবাদী মানুষ। এই গুজব থেকে সাধারণ মানুষকে সচেতন থাকতে হবে। যারাই গুজব রাটাবে এবং বেশি দামে লবণ বিক্রি করবে প্রশসন তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাজিয়া আফরীন জানান, লবণের দাম কোথাও বাড়েনি। এটা একটা গুজব। যারা এ গুজব রটাবে বা কৃত্রিম সংকট তৈরির জন্য মজুত রাখবে, তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।