দিঘলিয়ায় দুই কিশোরী ধর্ষণের ঘটনায় গ্রেফতার ৬, একজনের স্বীকারোক্তি

0
396

নিজস্ব প্রতিবেদক:
খুলনার দিঘলিয়া উপজেলায় ষষ্ঠ ও সপ্তম শ্রেণিতে পড়ুয়া দুই কিশোরী ধর্ষণের ঘটনায় ৬ আসামিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এদের মধ্যে এক আসামি এ ব্যাপারে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।
গ্রেফতার আসামিরা হলেন- ইমন মোল্লা, নূর ইসলাম ওরফে মনা, রমজান ওরফে কালু, হাবিবুর রহমান ওরফে শাকিল, মাহাবুবুর রহমান সাগর ও রাতুল হাসান রাব্বি ওরফে টিনা। তবে মূল ২ আসামি লিমন ও বাপ্পী পলাতক রয়েছেন। এদিকে সোমবার বিকেলে ইমন মোল্লা আদালতে ১৬৪ ধারায় এ ব্যাপারে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।
গত বৃহস্পতিবার (১০ অক্টোবর) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে ওই ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় রবিবার রাতে ৯ জনকে আসামি করে মামলা করেন এক কিশোরীর বাবা। মামলার পর রাতেই বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালিয়ে ৬ আসামিকে গ্রেফতার করে পুলিশ।
দিঘলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মানস রঞ্জন দাস জানান, গত ১০ অক্টোবর নগরীতে এক আত্মীয়ের বাড়িতে বেড়াতে যায় ঘটনার শিকার ৬ষ্ঠ শ্রেণিতে পড়ুয়া কিশোরী। বিকেলে ওই আরেক আত্মীয় সপ্তম শ্রেণীতে পড়ুয়া কিশোরীকে সঙ্গে নিয়ে ঘুরতে বের হয় সে। এরই এক পর্যায়ে দিঘলিয়া পৌঁছালে পূর্বপরিচিত যুবক ইমন মোল্লা তাদের ডেকে একটি বাগানে নিয়ে যায়। সেখানে লিমন ও বাপ্পী নামের দুই যুবক ওই দুই কিশোরীকে ধর্ষণ করে। ইমনসহ অন্য আসামিরা এ সময় লিমন ও বাপ্পীকে সহযোগিতা করে।
ওসি বলেন, লিমন ও বাপ্পীর সঙ্গে ওই দুই কিশোরীর প্রেমের সম্পর্ক ছিল বলে ধারণা করা হচ্ছে। ইমন মোল্লার সঙ্গে আগে থেকেই দুই কিশোরীর পরিচয় ছিল। এই সুযোগ কাজে লাগিয়েই তাদের বাগানে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করা হয়। ইমনই ধর্ষণের মূল পরিকল্পনাকারী ও সহযোগী।