খুলনায় লবণের সংকট দেখিয়ে মূল্যবৃদ্ধির গুজব, মাঠে প্রশাসন

0
140

এম জে ফরাজী : এবার খুলনায় লবণের কৃত্রিম সংকট দেখিয়ে মূল্যবৃদ্ধির গুজব ছড়িয়ে পড়েছে। গুজবের কারণে মহানগরীসহ সমগ্র জেলাজুড়ে লবণ নিয়ে চলছে লঙ্কাকাণ্ড। দাম বাড়ানোর পাশাপাশি মজুদ করার অভিযোগে ক্রেতা-বিক্রেতাদের মধ্যে বাক-বিতণ্ডা।
মঙ্গলবার দুপুরের পর থেকে রাত পর্যন্ত দোকানে লবণ ক্রয়ের জন্য ক্রেতাদের হুমড়ি খেয়ে পড়তে দেখা গেছে। চাহিদা বেশি হওয়ায় ডিলার ও অনেক পাইকারি ব্যবসায়ীর গোডাউন লবণ শূন্য হয়ে গেছে। মহানগরীর বড় বাজার থেকে ফ্রেশ লবণের কেজি কিনা হয়েছে ৩২ টাকায়। সেই লবণ সন্ধ্যায় ১০০ টাকায় বিক্রি হতে দেখা গেছে। মহানগরীর পাড়া মহল্লার দোকানগুলোতে সেই লবণ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।
অভিযোগ উঠেছে, পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধির ধকল কাটতে না কাটতেই বিভিন্ন স্থানে চলছে লবণের কৃত্রিম সংকট সৃষ্টির চেষ্টা। আবার কোন কোন অসাধু ব্যবসায়ী লবণের দাম আরও বৃদ্ধি পাবে এ আশঙ্কায় লবণ মজুদ করে রেখেছেন।
সন্ধ্যার পর নগরীর নিউমার্কেট, বানরগাতি, সোনাডাঙ্গা, মুসলমানপাড়া, স্যার ইকবাল রোডসহ বেশিরভাগ এলাকায় অতিরিক্ত মূল্যে গৃহিনীরা লবণ কিনতে আসছেন। বাক-বিতণ্ডা করলে অনেক মুদি দোকানী লবণ নেই বলে সঙ্কট দেখাচ্ছে। ফলে লবণ না থাকায় অনেকেই খালি হাতেই ফিরছেন। নগরীর বড় বাজার ও সন্ধ্যা বাজারে গিয়েও একই দৃশ্য দেখা গেছে।
লবণ নিয়ে গুজবে কান না দিতে জেলা প্রশাসন ও তথ্য অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে সামাজিক মাধ্যমে প্রচারণা চালানো হচ্ছে। কিন্তু তাতেও মানুষের মাঝে উদ্বেগ কমছে না। গুজব ছড়ানোর খবর পেয়ে খুলনা জেলা প্রশাসন দাম নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য মাঠে নেমেছে।
এ ব্যাপারে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর খুলনা জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক শিকদার শাহীনুর আলম জানান, বুধবার (আজ) আমরা অভিযানে নামবো। অনিয়ম বা হয়রানির অভিযোগ পাওয়া গেলে জরিমানা করা হবে।
খুলনা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন বলেন, বাজার তদারকির জন্য জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে গুজব প্রতিরোধে তিনজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিয়ে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। মহানগরীর বাজার তদারকির জন্য এই তিন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কাজ করছেন। অনুরূপভাবে উপজেলা পর্যায়ে ইউএনওকে বাজার তদারকির জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।
তিনি জানান, সারাদেশে বিভিন্ন লবণ কোম্পানির ডিলার, পাইকারি ও খুচরা বিক্রেতাদের কাছে পর্যাপ্ত লবণ মজুদ রয়েছে। পাশাপাশি চলতি মাস থেকে লবণের উৎপাদন মওসুম শুরু হয়েছে। সে হিসাবে লবণের কোনো ঘাটতি নেই। কাউকে গুজবে কান না দেওয়ার আহবান জানান জেলা প্রশাসক।


একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here