খুলনায় নৌযান শ্রমিকদের কর্মবিরতি শুরু

0
104

মারুফ গাজী:
আজ থেকে ’এগারো’ দফা দাবি নিয়ে মাঠে নেমেছে বাংলাদেশ নৌযান শ্রমিক ফেডারেশন। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত নৌ যান শ্রমিকদের লাগাতার বহাল থাকবে কর্ম বিরতি। খুলনা সহ সারাদেশে একযোগে এবার আন্দোলনের এমন ডাক দিয়েছেন তারা। আন্দোলনের অংশ হিসেবে শুক্রবার দুপুরের পর থেকেই বেশ সরগরম নগরীর বিআইডব্লিউটিএ ঘাট এলাকা। খুলনা, নওয়াপাড়া ও মংলা থেকে প্রায় ২০হাজার নেতাকর্মী ফেডারেশনের এমন দাবিতে মাঠে নেমেছেন।
শুক্রবার খুলনা নৌযান শ্রমিক সংঘটন এর উদ্যোগে এমন কর্মসূচির পূর্বে বিকাল থেকেই নেতাকর্মিরা মিছিলে বের হয়, সংগঠনের সাধারন সম্পাদক আলী আকবারের নেতৃতে। মিছিলটি সাতনম্বর কাস্টম ঘাট হয়ে পুরাতন রেল স্টেশন এ যেয়ে সমাপ্তি হয়। মিছিল শেষে নেতাকর্মীরা সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন লঞ্চ লেবার এসোসিয়েশনের খুলনার যুগ্ম সম্পাদক ফারুক হোসেন, জেলা ট্রেড ইউনিয়ন সংঘ খুলনার সভাপতি নজরুল ইসলাম, জাহাজী শ্রমিক সংঘ খুলনার সাবেক সেক্রেটারি জয়নাল আবেদীন, বাংলাদেশ লঞ্চ লেবার এসোসিয়েশনের সদস্য এনায়েত হোসেন, নৌযান শ্রমিক ইউনিয়নের সদস্য বরকতুল্লাহ সহ দেলওয়ার হোসেন প্রমুখ।
এবার তাদের দাবি হিসেবে, ঢাকা নদী বন্দর সহ নৌ পথে সন্ত্রাস বন্ধে, চাঁদাবাজি বন্ধে, প্রত্যেক নৌ শ্রমিককে খাদ্য ভাতা প্রদানে, কেরানী, কেবিন বয়, ইলেকট্রিশিয়ান সহ নসকল নৌ শ্রমিককে সরকার ঘোষিত গেজেট মোতাবেক বেতন প্রদানে, ভারতগামী শ্রমিকদের ল্যান্ডিং পাশ কন্ট্রিবিউটারি প্রভিডেন্ট ফান্ড গঠনে, নৌযান শ্রমিকদের সামাজিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে, মৃত্যুকালীন ভাতা দশ লাখ টাকা নির্ধারণ করা সহ এগার দফা দাবী আদায়ের লক্ষে এমন কর্মসূচিতে সমগ্র বাংলাদেশ পরিসরে আন্দোলন শুরু করেছে নৌযান শ্রমিক ফেডারেশন। দাবি আদায় না হলে এমন আন্দোলন থেকে তারা অব্যহতি দেবেন না এমনটাই জানিয়েছেন স্থানীয় নেতাকর্মীরা।
খুলনা, নওয়াপাড়া ও মংলার প্রায় বিশ হাজার নেতাকর্মীদের নিয়ে তারা ফেডারেশনের এমন ডাকে সাড়া দেয় এমনটাই অবহিত করেন নৌযান শ্রমিক সংঘটন খুলনা। বাংলাদেশ নৌযান শ্রমিক ফেডারেশন এর তথ্য মতে, সর্বশেষ গত বছরের ৩০আগস্ট এগারো দফা এ দাবি উত্থাপন পর সরকার ও মালিকরা একাধিকবার চুক্তি করা ও প্রতিশ্রুতি দিয়েও তা রক্ষা করেননি এমনটাই অভিযোগ সংঘটনটির। তাই এবারের দাবি চূড়ান্ত ভাবে গৃহীত না হওয়া পর্যন্ত তারা লাগাতার কর্ম বিরতি থেকে অনড় থাকবেন।


একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here